শুক্রবার, ২১ জানুয়ারী ২০২২, ০২:১৩ পূর্বাহ্ন

এখন থেকে সরকারি চাকুরীজীবীদের সম্পদের হিসাব দিতে হবে

নগদ নিউজ ডেস্ক
  • আপডেটের সময় : রবিবার, ২৫ জুলাই, ২০২১

সরকারী কর্মকর্তা-কর্মচারীরা তাদের বেতনের তুলনায় অনেক বেশি অর্থ ও সম্পদ অর্জন করছে দুর্নীতি ও ঘুস বানিজ্যের মাধ্যমে, যার ফলে দেশ ধ্বংসের দিকে এগিয়ে যাচ্ছে ক্রমেই।
ইতিহাস থেকে জানা যায় যে সকল রাষ্ট্র এক সময় অনেক ধনী রাষ্ট্র হিসাবে পরিচিত ছিলো, সেই রাষ্ট্রগুলো আজ পৃথিবীর গরীব রাষ্ট্রের লিষ্টে স্হান করে নিয়েছে শুধু দুর্নীতি কারনেই।

আইন অনুসারে সরকারি কর্মচারী (আচরন) বিধিমালা-১৯৭৯ অনুযায়ী ৫ বছর পরপর সরকারি চাকুরীজীবীদের সম্পদের পরিমাপের হিসাব দাখিল এবং স্হাবর সম্পত্তি অর্জন বা বিক্রির অনুমতি নেয়ার নিয়ম রয়েছে।
কিন্তু কোন ক্ষেত্রেই এই নিয়মের তোয়াক্কা করছে না সরকারী কর্মকর্তা-কর্মচারীরা, এই বিষয়ে সরকারের ছিলো না কোন তদারকি।
জন প্রশাসন মন্ত্রণালয় থেকে সম্প্রতি সময়ে চিঠি পাঠানো হয়েছে সব মন্ত্রণালয় ও বিভাগের সিনিয়র সচিব/ সচিবদের কাছে, সেখানে বলা হয়েছে এখন থেকে এই বিধিমালাটি কার্যকরের মাধ্যমে সরকারি কর্মচারীদের সম্পদ বিবরনী দাখিল ও স্হাবর সম্পদ অর্জন বা বিক্রির নিয়ম মানতে সকল প্রকার পদক্ষেপ নিতে বলা হয় এবং কোন কর্মচারী এই বিধি না মানলে বিভাগীয় ব্যবস্থা গ্রহন করতে হবে।

এর আগে ২০১৯ সালে নতুন ভূমি মন্ত্রী আসার পর ভূমি মন্ত্রণালয়ের অধিন সকল তৃতীয়-চর্তুথ শ্রেনীর কর্মচারীদের সম্পদের হিসাব নেওয়া হয়েছিল।
জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের শৃঙ্খলা-৪ শাখার নাফিসা আরেফিন (উপসচিব) স্বাক্ষরিত এক চিঠিতে বলা হয়েছে, সরকারি কর্মচারী( আচরন) বিধিমালা-১৯৭৯ এর ১১,১২ ও ১৩ বিধি মোতাবেক সরকারি কর্মচারীদের স্হাবর সম্পদ অর্জন,বিক্রয় ও সম্পদ বিবরণী দাখিলের বিষয়ে নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সুশাসন নিশ্চিত এবং উল্লেখিত বিধিসমূহ কার্যকর করার জন্য সব মন্ত্রণালয়কে জোর নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।

সরকারি চাকুরী আইন-২০১৮ এর আওতাভুক্তদের নিয়ন্ত্রানাধীন সকল প্রশাসনিক মন্ত্রণালয়/দফতর/পরিদফতর/অধীনস্থ সংস্থার সকল কর্মকর্তা-কর্মচারীদের সম্পদ বিবরণী দাখিল এবং দাখিলকৃত সম্পদের হিসাব বিবরণীর ডাটাবেইজ তৈরি করতে হবে। এবং সরকারী কর্মচারী (আচরন)-১৯৭৯ এর ১১,১২ ও ১৩ বিধি পুঙ্খানুপুঙ্খভাবে প্রতিপালনের জন্য জরুরি ভিক্তিতে দ্রুত ব্যবস্হা গ্রহণ করে জন প্রশাসন মন্ত্রণালয়কে জানানোর নির্দেশনা দেওয়া হয় উক্ত চিঠিতে।
তাছাড়া সরকারি কর্মচারীর জমি/বাড়ি/ফ্ল্যাট/গাড়ি/ সম্পত্তি ক্রয় অর্জন ও বিক্রয়ের অনুমতির জন্য বিদ্যমান নমুনা ফর্ম একটা কপি চিঠির সাথে পাঠানো হয়।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই রকম আরো কিছু জনপ্রিয় সংবাদ

© All rights reserved © 2021 NagadNewsBD.Com
Design & Development BY Hostitbd.Com